কুলভূষণের মৃত্যুদন্ডাজ্ঞায় পাকিস্তানকে তোপ আসাদউদ্দীন ওয়াইসির

ইনকিলাব ডেস্কঃ পাকিস্তানে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত ভারতীয় প্রাক্তন নৌসেনা অফিসার কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদন্ডের প্রতিবাদে ভারতীয় সংসদে নিজের ক্ষোভ ব্যক্ত করলেন অল ইন্ডিয়া মজলিস-এ-ইত্তেহাদুল-মুসলেমিন এর নেতা আসাদুদ্দীন ওয়াইসি। তিনি দাবী করেন কোন স্বচ্ছ তদন্ত ছাড়াই পাকিস্তানের সাজানো আদালতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এইধরনের ঘটনা ঘটতে পারে জেনেও সঠিক কূটনৈতিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে দাবি করেন তিনি। তিনি বলেন, তের দফা চেষ্টা করা হয়েছে, প্রয়োজনে আরো চেষ্টা করা উচিৎ। হায়দ্রাবাদের এই সাংসদ ২০১৪ সালে সাংসদরত্ন সম্মান পান। এর আগে ‘আমন কি আশা’ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হয়ে পাকিস্তানের মাটিতে পাকিস্তানের সমালোচনা করেন তিনি।
এদিন সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এই প্রসঙ্গে বিবৃতি দেন। তিনি দাবী করেন কুলভূষণ যাদব তাঁর নৌসেনা জীবন থেকে অবসর নিয়ে ইরানে ইরানী নাগরিকের সাথে অংশীদারিত্বে ব্যবসা করছিলেন। পাকিস্তান তাঁকে প্রতারণা করে বন্দী করে। এরপর ভারত সরকারকে তাঁর হয়ে সওয়াল করতেও দেওয়া হয়নি। এরপর বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজও তাঁর বয়ান পেশ করেন। পাকিস্তানের দূতকে ডেকে অসন্তোষ ব্যক্ত করে স্মারক জমা হয়েছে।
পাকিস্তান নিজেদের দেশের সমস্যাগুলি না মেটার জন্য একাধিকবার ভারতের গুপ্তচরেদের ওপর দোষারোপ করে আসছে। ভারতীয় গুপ্তচর রবীন্দ্র কৌশিক পাকিস্তানে সেনাবাহিনীর মধ্যে গিয়ে মেজর পদে কর্মরত ছিলেন। এই কাজে সাফল্য পাওয়ার জন্য তিনি মুসলিম প্রথা রফ্ত করেছিলেন, এমনকি তাঁর খাৎনা বা লিঙ্গচ্ছেদন পর্যন্ত হয়েছিল। তিনি ধরা পড়ে গেলে দীর্ঘদিন যন্ত্রণাসহ কারারুদ্ধ অবস্থায় মারা যান। তিনি নাকি বলেছিলেন, “যদি আমি মার্কিনী হতাম, তাহলে মার্কিন সরকার আমাকে তিনদিনের মধ্যে ছাড়িয়ে নিত।” ১৯৯৯ সালে শেখ শামিম নামে এক ভারতীয়কে পাকিস্তানে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কাশ্মীর সিংকে ততকালীন রাষ্ট্রপতি পারভেজ মুশারফ মার্জনা করেন, ৩৫ বছর পর ভারতে ফিরে আসেন।  হালের সরবজিত সিং গুপ্তচরবৃত্তি এবং বোমা বিস্ফোরণের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়ে দীর্ঘদিন মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত হয়ে পাকিস্তানে কারারুদ্ধ ছিলেন। ২০১৩এ দুই বন্দীর হামলায় তিনি প্রাণ হারান। পাকিস্তান কুলভূষণ যাদবকে তাঁর মৃত্যুদণ্ডের বিরুদ্ধে আবেদন করার জন্য ৬০ দিন সময় দিয়েছে।
বিতর্কিত ভূখন্ড, নদীর জল, সন্ত্রাসবাদের মত গুপ্তচরবৃত্তিও দুই দেশের মধ্যে বিবাদের বিষয় হয়ে আছে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *