বাঙালিয়ানার নয়া ঠিকানাঃ বাংলা-কবিতা ডট কম

ইনকিলাব ডেস্কঃ  মাঝেমাঝেই বিভিন্ন আলোচনা-সেমিনার থেকে চায়ের আড্ডা, ফেসবুক থেকে ট্রামেবাসে কান পাতলে শোনা যায় বাংলা ভাষা নাকি বিলুপ্তির পথে। কিম্বা কেউ ভালো বাংলা বলতে পারেন না বলে গর্ববোধ করেন। অথবা প্যানপ্যানে বাংলা গান-কবিতা-গল্পের  জনপ্রিয়তা হারানোর পরিসংখ্যান। তার মাঝেই ছক ভেঙে দিয়ে বেরিয়ে আসছে নানা উদ্যোগ। এই সাইবারযুগের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলা-কবিতা ডট কম নামে ওয়েব্সাইট নিয়ে হাজির হয়েছেন এক কবিতাপ্রেমী দম্পতি। ভারি আশ্চর্য্য লাগলেও সত্যি, শুধুমাত্র বাংলা ভাষার কবিতা, যে কবিতার গ্রহণযোগ্যতা নাকি তরুণ প্রজন্মের কাছে ক্রমেই কমে আসছে বলে দাবি করা হয়, সেই বাংলা কবিতা নিয়েই আস্ত এক ওয়েবসাইট! এবং এই ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি একেবারে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

প্রোগ্রামার হবার স্বপ্ন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান বাংলাদেশের নওজওয়ান আসফাকুর রহমান পল্লব। একসময় পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হোন আরেক কবিতাপ্রেমী মৌসুমি রহমান ইকরার সাথে। তাঁদের দুজনের অক্লান্ত অধ্যবসায়ের ফলে জন্ম নেয় bangla-kobita.com । সেটা ছিল ২০০৯ সাল, দিনটা ভাষাদিবস ২১শে ফেব্রুয়ারী। সেসময় এই ওয়েবসাইট ছিল বড়ই সাদামাঠা, কিন্তু খুব দ্রুতই জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে বাংলা-কবিতার। এখানে চালু হয় ‘কবিতার আসর’ নামে বিভাগ। সেই আসরের কবিরাই বাড়িয়ে তোলেন নিজেদের পরিসর। কবিদের নিজেদের উদ্যোগে হয়েছে মিলন অনুষ্ঠান। প্রথমে কয়েকবার ঢাকাতে ও পরে কলকাতাতেও। সম্প্রতি এরকমই এক অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন কবি নির্মলেন্দু গুণ। কবি নির্মলেন্দু গুণ সেই দেশের বিখ্যাত কবি লুত্ফর রহমান রিটন এবং মহম্মদ রফিকুজ্জামানের সাথে তাঁদের কবিতাগুলি ভাগ করে নিচ্ছেন বাংলা-কবিতা ডট কমে।
এখন এই ওয়েবসাইটে আছে বাংলা সাহিত্যে খ্যাতিমান কবিদের কবিতার পাশাপাশি নিজেদের কবিতা প্রকাশের সুযোগ। ফলে প্রকাশকের কাছে হাপিত্যেশ করে বসে না থেকে সহজেই নিজের কবিতা প্রকাশ করা যায় ‘কবিতার আসর’ বিভাগে। সাথে সাথে তা পৌঁছে যায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা বাংলা কবিতানুরাগীদের কাছে। সৌখিন কবির কাছে পাওনা হয়ে ওঠে অন্যান্য কবিতাপ্রেমীদের মতামত। সাথে আছে অন্যান্য কবিদের সাথে আড্ডার ব্যবস্থাও। কবিতা বিষয়ক আলোচনা করার জন্যও আছে আলাদা বিভাগ। সাথে পাওয়া যাবে বাংলা সাহিত্যের খ্যাতিমান কবিদের বিভিন্ন সময়ের কবিতা।

প্রথমে পিডিএফ বইয়ের রূপে শুরু হয়েছিল প্রকাশনার দিকে যাত্রা। তারপর এডমিনের উদ্যোগে আসরের কবিদের কবিতা নিয়ে বই প্রকাশিত হয় ‘শতরূপে ভালোবাসা’ নামে। এই বই প্রকাশে উদ্যোগ নিয়েছিলেন ‘জাগৃতি’ প্রকাশনীর ফয়সল আরেফিন দীপন(যিনি পরে মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের শিকার হোন)। এর পরেও চলেছে প্রকাশনার কাজ, এমনকি কবিদের ব্যক্তিগত উদ্যোগেও বই প্রকাশিত হয়েছে। হয়তো এই পথেই এক যুগ থেকে অন্য যুগে এগিয়ে যাওয়ার পথে অগ্রদূত হবে বাংলা-কবিতা ডট কম।

Please follow and like us:

2 thoughts on “বাঙালিয়ানার নয়া ঠিকানাঃ বাংলা-কবিতা ডট কম

  1. বাংলা-কবিতা ডট কম নিয়ে রচিত আপনার এ লেখাটা পড়ে মুগ্ধ হ’লাম।
    কবিতাপ্রেমী দম্পতি আশফাকুর রহমান পল্লব এবং মৌসুমি রহমান ইকরা এর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাচ্ছি, শত ব্যস্ততার মাঝেও এতটা সময় নিয়ে “বাংলা-কবিতা ডট কম” কে এত সুন্দর করে সাজিয়ে তোলার জন্য। ২০০৯ সালের ভাষা দিবসে ওনারা নিজ মাতৃভাষার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বাংলা কবিতার পৃষ্ঠপোষকতার জন্য যে ছোট্ট বীজটি রোপন করেছিলেন, তা আজ ফুলে ফলে পত্র পল্লবে সুশোভিত।
    এবারে একুশে বইমেলায় বাংলা-কবিতা ডট কম এর এডমিন পল্লবের সাথে চাক্ষুষ দেখা হয়েছিল। অসুস্থ স্কুল শিক্ষক পিতাকে চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যাবার লক্ষ্যে তিনি কয়েকদিনের ছুটিতে বাংলাদেশে এসেছিলান। এরই মাঝে কিছুটা সময় করে তিনি নিজের এক বোনকে সাথে নিয়ে মেলায় এসেছিলেন, সেখানেই আমার সাথে দেখা হয়েছিল। উনি দেখতে যেমন সুদর্শন, আচার আচরণে ততোধিক বিনম্র ও বিনয়ী।
    বাংলা কবিতাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পথে অগ্রদূত হয়ে থাক “বাংলা-কবিতা ডট কম”, — এই কামনা রেখে গেলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *